সংবাদ শিরোনাম
Home / জাতীয় / ৯০ দিনের ক্ষণ গণনা শুরু হচ্ছে বুধবার
ফাইল ছবি

৯০ দিনের ক্ষণ গণনা শুরু হচ্ছে বুধবার

অনলাইন ডেস্কঃ বর্তমান দশম জাতীয় সংসদের চলতি শেষ অধিবেশনের সমাপ্তি ঘটতে যাচ্ছে আগামী সোমবার। একাদশ সংসদ নির্বাচনের আগে আর অধিবেশন বসবে না। একই সঙ্গে ‘মেয়াদ অবসানের কারণে সংসদ ভাংগিয়া যাইবার ক্ষেত্রে ভাংগিয়া যাইবার পূর্ববর্তী নব্বই দিনের মধ্যে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হইবে’- সংসদ বহাল রেখে নির্বাচন অনুষ্ঠানের ক্ষেত্রে সংবিধানে থাকা এই বিধান অনুযায়ী সেই ৯০ দিনের ক্ষণ গণনা শুরু হতে যাচ্ছে আগামী ৩১ অক্টোবর বুধবার।

সংবিধান অনুযায়ী একটি সংসদের মেয়াদ পাঁচ বছর। সংসদের প্রথম অধিবেশনের প্রথম কার্যদিবস থেকে এই পাঁচ বছর মেয়াদ গণনা শুরু হয়। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত দশম সংসদ নির্বাচনের পর প্রথম অধিবেশন বসেছিল ওই বছরের ২৯ জানুয়ারি। সেই হিসাবে বর্তমান দশম সংসদের পাঁচ বছর মেয়াদ পূর্ণ হবে আগামী ২৮ জানুয়ারি। সংসদ বহাল রেখে নির্বাচন করতে হলে সংসদের মেয়াদ পূরণের পূর্ববর্তী ৯০ দিনের মধ্যে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠানের সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে। সাংবিধানিক এই হিসাব অনুযায়ী ২৮ জানুয়ারির পূর্ববর্তী ৯০ দিনের ক্ষণ গণনা শুরু হবে আগামী ৩১ অক্টোবর। প্রসঙ্গত, ২০১১ সালের ৩০ জুন সংসদে গৃহীত সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনীতে মেয়াদ অবসানের কারণে সংসদ ভেঙে যাওয়ার পরবর্তী ৯০ দিনের মধ্যেও সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের বিকল্পের কথাও বলা আছে।

আগামী সোমবার চলতি অধিবেশন সমাপ্তি ঘোষণা করা হবে, না-কি মুলতবি করা হবে এনিয়ে কারও কারও মধ্যে একাধিক মত দেখা দেয়। এ ব্যাপারে সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী গতকাল বৃহস্পতিবার ইত্তেফাকের সঙ্গে আলাপকালে বলেন, ‘এক্ষেত্রে সংসদ মুলতবি রাখা যায় না। চলতি অধিবেশন সোমবার শেষ হচ্ছে। একাদশ সংসদ নির্বাচনের আগে আর অধিবেশন ডাকার দরকার হবে না। একটি অধিবেশন শেষ হওয়ার ৬০ দিনের মধ্যে পরবর্তী অধিবেশন ডাকার সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে, তবে নির্বাচনের সিডিউল ঘোষণার পর কিংবা নির্বাচনকালীন সময়ে ৬০ দিনের মধ্যে অধিবেশন ডাকার ক্ষেত্রে সাংবিধানিক এই বাধ্যবাধকতা নেই।’

এক প্রশ্নের জবাবে স্পিকার বলেন, “এখন যে অধিবেশনটি চলছে সেটা চলতি দশম সংসদের ২৩তম অধিবেশন। আমরা এটাকে ‘শেষ অধিবেশন’ বলি না। অন্যান্য অধিবেশনের মতো এবারের অধিবেশন সমাপ্তির বিষয়েও রাষ্ট্রপতির আদেশ সংসদে পাঠ করে শোনানো হবে। পরবর্তী কার্যক্রম পরিচালিত হবে সংবিধান অনুযায়ী।’

গত রবিবার শুরু হওয়া ২৩তম অধিবেশনটি গতকাল শেষ হওয়ার কথা ছিল। অধিবেশন শুরুর আগে সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত সংসদের কার্যউপদেষ্টা কমিটির বৈঠকেও এই সিদ্ধান্ত হয়েছিল। বৈঠকে এই সিদ্ধান্তও গৃহীত হয়েছিল যে প্রয়োজন মনে করলে স্পিকার অধিবেশনের মেয়াদ বাড়াতে বা কমাতে পারবেন। স্পিকার নিজ ক্ষমতাবলে অধিবেশনের মেয়াদ আগামী সোমবার পর্যন্ত বাড়িয়েছেন।

অধিবেশনের মেয়াদ বৃদ্ধির কারণ সম্পর্কে সংসদের চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ গতকাল ইত্তেফাককে বলেন, ‘আসলে কতগুলো বিল রয়েছে, এই বিলগুলো পাস করানোর জন্যই মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। আমরা চেষ্টা করছি উত্থাপিত সবগুলো বিল পাস করার জন্য। যদি সেটা সম্ভব না হয় তাহলে যে বিলগুলো বেশি গুরুত্বপূর্ণ সেগুলো সোমবারের মধ্যে পাস করা হবে।’ উল্লেখ্য, বিল পাস করানোর লক্ষ্যে আগামীকাল শনিবারও সংসদ বসবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*